• রোববার   ১৮ এপ্রিল ২০২১ ||

  • বৈশাখ ৫ ১৪২৮

  • || ০৭ রমজান ১৪৪২

ষাট গম্বুজ বার্তা

অগ্নিঝরা মার্চ:

আজ গণতন্ত্র হত্যা দিবস

ষাট গম্বুজ টাইমস

প্রকাশিত: ২৪ মার্চ ২০২১  

১৯৮২ সালের ২৪ মার্চ তৎকালীন সেনাপ্রধান হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদ অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করেছিলেন। বাংলাদেশের ইতিহাসে এটাই প্রথম নয়, জিয়াউর রহমানও একইভাবে সেনাবাহিনী থেকে ক্ষমতা দখল করেছিলেন। আর জিয়াউর রহমানের একই ধারায় ক্ষমতা দখল করেছিলেন হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদ।

রাষ্ট্রপতি বিচারপতি আবদুস সাত্তারের সরকারকে হটিয়ে সেনাবাহিনীর চিফ অব স্টাফ লে. জেনারেল হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ নিজেকে গদিনশিন করেন। ওই দিন বেতার ও টেলিভিশনে প্রচারিত ভাষণে তিনি বলেন, ‘জনগণের ডাকে সাড়া দিতে হইয়াছে, ইহা ছাড়া জাতির সামনে আর কোনো বিকল্প ছিল না।’ তিনি বাংলাদেশে দ্বিতীয়বারের মতো সামরিক শাসন জারি করে নিজেকে প্রধান সামরিক আইন প্রশাসক ঘোষণা করেন। 

কিন্তু ১৯৬২ সালের শিক্ষা আন্দোলনের স্মরণে ১৯৮২ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর শিক্ষা দিবস পালন করার জন্য ১৪টি ছাত্রসংগঠন একত্র হয়। পরে আরও ৫টি ছাত্রসংগঠন এতে যোগ দেয়। তারা ১০ দফা দাবিনামাও তৈরি করে। তাদের মূল দাবি ছিল মজিদ খানের প্রস্তাবিত শিক্ষানীতি বাতিল করা। এরপর লাগাতার আন্দোলনের মুখে ১৯৯০ সালে ৬ ডিসেম্বর বেলা দুইটায় বিচারপতি সাহাবুদ্দীন আহমদ উপরাষ্ট্রপতির দায়িত্ব নেন। এরশাদ নবনিযুক্ত উপরাষ্ট্রপতির কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেন। এভাবেই শেষ হয় নয় বছরের এরশাদ-জমানা। 

এরশাদের পতন হয় এবং গণতন্ত্রের বিজয় দিবস আর এরশাদের ক্ষমতা দখলের দিনটি গণতন্ত্র হত্যা দিবস।

ষাট গম্বুজ বার্তা
ষাট গম্বুজ বার্তা