• বৃহস্পতিবার   ০৬ মে ২০২১ ||

  • বৈশাখ ২৩ ১৪২৮

  • || ২৪ রমজান ১৪৪২

ষাট গম্বুজ বার্তা

আজ জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ শুরু

ষাট গম্বুজ টাইমস

প্রকাশিত: ৪ এপ্রিল ২০২১  

‘মুজিব বর্ষে শপথ নেব, জাটকা নয় ইলিশ খাব’ স্লোগানকে প্রতিপাদ্য করে রোববার (৪ এপ্রিল) থেকে শুরু হয়েছে ‘জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ ২০২১’। আগামী ১০ এপ্রিল পর্যন্ত দেশের ২০টি জেলায় এ সপ্তাহ পালিত হবে।

উদ্বোধনী দিন বেলা ১১টায় মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করীম মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এ উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলন করেন। এ সময় মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বাধীন সরকার ইলিশ সম্পদ রক্ষা ও উন্নয়নে সময়োপযোগী এবং বাস্তবমুখী কার্যক্রম বাস্তবায়নে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। তাই ইলিশের টেকসই ও স্থায়ী উৎপাদন নিশ্চিত করতে প্রতিবছর জাতীয়ভাবে সমন্বিত কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়ে থাকে। এ ধারাবাহিকতায় মৎস্যজীবী, ইলিশ ব্যবসায়ী, আড়তদার, ভোক্তাসহ সব শ্রেণির জনগণের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রতি বছরের মতো এবারও জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ উদযাপন করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকীতে জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘মুজিববর্ষে শপথ নেব, জাটকা নয় ইলিশ খাব’। এ বছর দেশের ইলিশ সম্পৃক্ত ২০টি জেলার জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ-২০২১ এর কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। করোনা মহামারির কারণে ঢাকায় মৎস্য অধিদফতরের জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান আগামীকাল (৫ এপ্রিল) অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে, দিবসটি উপলক্ষে বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় দিবসটি উপলক্ষে সীমিত পরিসরে কর্মসূচি গ্রহণ করেছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়।

এর মধ্যে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সপ্তাহের উদ্বোধনী দিন জাতীয় দৈনিকে ক্রোড়পত্র প্রকাশ করা হয়। কর্মসূচির দ্বিতীয় দিন ৫ এপ্রিল সীমিত পরিসরে জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ ২০২১ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে ঢাকার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র, মাছের আড়ত, বাজারসহ জনাকীর্ণ স্থানে জাটকা সংরক্ষণের গুরুত্ব ও এ সংক্রান্ত আইন বিষয়ে প্রচার কার্যক্রম, টেলিভিশনে জাটকা সংরক্ষণের গুরুত্ব নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠান প্রচার, গণযোগাযোগ অধিদফতরের সহায়তায় রাজধানীসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ভিডিওচিত্র প্রদর্শন, জাটকা সংরক্ষণে হাট-বাজার ও আড়তে মোবাইল কোর্ট এবং অভিযান পরিচালনার পাশাপাশি ইলিশ আহরণে সম্পৃক্ত প্রকৃত মৎস্যজীবীদের মধ্যে বিকল্প কর্মসংস্থানের উপকরণ বিতরণ কর্মসূচি।

এছাড়া জেলা-উপজেলা কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে জেলেদের মধ্যে নৌকা বাইচ, হা-ডু-ডু, সাঁতার ইত্যাদি ক্রীড়া প্রতিযোগিতা আয়োজন, জাটকা সমৃদ্ধ এলাকায় ভিডিও চিত্র প্রদর্শন ও ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা, মৎস্যজীবী ও জেলে পল্লীতে সচেতনতামূলক ও উদ্বুদ্ধকরণমূলক পথ নাটক, আঞ্চলিক সঙ্গীত ও লোক সংগীত পরিবেশন এবং জাটকা রক্ষায় জেলা-উপজেলা টাস্কফোর্স কমিটির মাধ্যমে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করা। তবে করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় এ বছর সকল কর্মসূচি সীমিত পরিসরে পালন করা হবে।

উল্লেখ্য, জাটকা সংরক্ষণের জন্য ০১ মার্চ থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত দুই মাস দেশের ৬টি জেলার ৫টি ইলিশ অভয়াশ্রমে ইলিশসহ সব ধরণের মাছ ধরা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। এ নিষেধাজ্ঞার আওতায় বরিশাল, চাঁদপুর, লক্ষ্মীপুর, ভোলা, শরীয়তপুর ও পটুয়াখালী জেলার ইলিশ অভয়াশ্রম সংশ্লিষ্ট নদ-নদীতে ইলিশসহ সব ধরনের মাছ ধরা বন্ধ রয়েছে।

এ বছর নিষিদ্ধ সময়ে অভয়াশ্রম সংশ্লিষ্ট ৬টি জেলার জাটকা আহরণে বিরত থাকা ২ লক্ষ ৪৩ হাজার ৭৭৮ জন জেলেদের জন্য মাসে ৪০ কেজি করে দুই মাসে ৮০ কেজি হারে মোট ১৯ হাজার ৫০২ মেট্রিক টন ভিজিএফ চাল প্রদান করেছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়।

ষাট গম্বুজ বার্তা
ষাট গম্বুজ বার্তা