• মঙ্গলবার   ২০ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ৫ ১৪২৭

  • || ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

ষাট গম্বুজ বার্তা
৭৫

বাংলাদেশ ও ভারতঃ সম্পর্কের এক নতুন দিগন্তের সূচনা

ষাট গম্বুজ টাইমস

প্রকাশিত: ৫ সেপ্টেম্বর ২০২০  

বাংলাদেশ এবং ভারতের সম্পর্ক একটি নতুন মাইলফলকে পৌঁছাল। দেশ দুটি এখন থেকে আধুনিক তথ্য প্রযুক্তি, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স, পরিবেশগত উন্নয়ন নিয়ে একে অপরকে সাহায্য করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দেশ দুটির পারস্পরিক সম্পর্ক আরো শক্তিশালী করার জন্য তরুণদের অংশগ্রণ আরো বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছেও বলে জানা গেছে। পাশাপাশি 'প্রতিবেশীরাই প্রথম'- এই নীতি অনুসরণ ভ্যাকসিন এবং চিকিৎসার ক্ষেত্রেও বাংলাদেশকে অগ্রাধিকার দেবে ভারত ।
কোভিড পরিস্থিতিতে ভারত সরকার তার সম্পদ ও জনবল নিয়ে সারা বিশ্বের কাছে হাজির হয়েছে আর্ত মানবতার দূত হিসেবে। বিশেষত হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন এবং প্যারাসিটামল এর উৎপাদন এবং এর সঠিক সরবরাহের মাধ্যমে বিশ্বদরবারে ছিলো ভারতের সরব উপস্থিতি। সমগ্র বিশ্বকে করোনা কালীন চিকিৎসা সামগ্রী, ঔষধ এবং জরুরী চিকিৎসক দলের উৎসর্গীকৃত সেবার মাধ্যমে সত্যিকারের আতিথেয়তার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে মোদী সরকার।

ভারত সর্বদাই বিশ্বাস করে আসছে যে এটি একটি বৃহৎ দেশগুলির একটি সম্প্রদায়ের অংশ।  আমাদের মূল নীতি , “ভাসুদাইবা কুটুমবাম” যা সামষ্টিক কল্যাণের সাথে অন্তর্নিহিত।  আমরা "নিশকাম কর্ম" (প্রচার কর্ম) এর নীতিতেও বিশ্বাস করি।
 
আমরা কভিড-১৯ মহামারী চলাকালীন এই শিক্ষাগুলি বাস্তবায়িত করেছি।  এই সঙ্কটের সময়ে "বিশ্বের ঔষধালয়" হিসাবে ভারতের ভূমিকা সম্মুখে এসেছিল । আমাদের একটি বিশ্বমানের ফার্মাসিউটিক্যাল শিল্প রয়েছে যা সমস্ত ভৌগলিক এবং বাজারে ব্র্যান্ডের স্বীকৃতি সহ নামকরা উৎপাদনকারী হিসেবে পরিচিত। কভিড মহামারীতে ভারতে উৎপাদিত হাইড্রোক্সাইক্লোরোকুইন (এইচসিকিউ) এবং প্যারাসিটামল জাতীয় ওষুধের চাহিদা বৃদ্ধি করে ।
 
সরকারী ও একাধিক বেসরকারী খাতের ফার্মাসিউটিকাল সংস্থার একাধিক শাখা জড়িত থাকায়, ভারত বিশ্বজুড়ে বন্ধুরাষ্ট্র  এবং ভোক্তাদের পর্যাপ্ত পণ্য মজুদ নিশ্চিত করার পরে সরবরাহ করতে সক্ষম হয়েছিল।  লকডাউন দ্বারা আরোপিত ভয়ঙ্কর লজিস্টিকাল চ্যালেঞ্জের মুখে, ভারতীয় ওষুধ ও চিকিৎসা সরবরাহগুলি দেড় শতাধিক দেশে পৌঁছেছে।
 
"মিশন সাগর", "অপারেশন সঞ্জীবনী" সহ বেশ কয়েকটি দেশে কভিড সহায়তার জন্য মেডিকেল র‌্যাপিড রেসপন্স টিম মোতায়েন, চিকিৎসকদের সংযোগ এবং স্বাস্থ্য সক্ষমতা নিশ্চিত করে। বিশ্বব্যাপী সহযোগিতার জন্য আমাদের প্রচেষ্টার জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসিত। এই দৃষ্টিভঙ্গির সাথে সামঞ্জস্য রেখে ভারত মহামারীর মাঝে বিশ্ব স্বাস্থ্য সুরক্ষায় ইতিবাচক দৃষ্টান্ত উপস্থাপন করেছে। আমরা এই অত্যন্ত কঠিন পরিস্থিতিতে সারা বিশ্বে এক দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখার জন্য দূরদর্শী দৃষ্টিভঙ্গির আশ্রয় নিয়েছি । এটি ভারতের আন্তর্জাতিক অবস্থানকে উন্নীত করেছে।

ষাট গম্বুজ বার্তা
ষাট গম্বুজ বার্তা
জাতীয় বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর