• শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১৭ ১৪২৯

  • || ০১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

ষাট গম্বুজ বার্তা

চিতলমারীতে মাটির নিচে অর্ধকোটি টাকার ঘাট, ভোগান্তিতে মানুষ

ষাট গম্বুজ টাইমস

প্রকাশিত: ৫ জুন ২০২২  

‘এত বড় হাট। অথচ কোন ঘাট নেই। সরকারের অর্ধকোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ঘাট গুলো এখন মাটির নিচে। তাই চরম ভোগান্তিতে হাট ও বাজারে আসা হাজার হাজার মানুষ। জানিনা কবে এই ভোগান্তি শেষ হবে।’ আজ রবিবার (০৫ জুন) দুপুরে কথা গুলো জানালেন বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলা সদর বাজারের ফল ব্যবসায়ী হারুন অর রশীদ কালাই (৪৮)।

তিনিসহ বাজারের অসংখ্য ব্যবসায়ী জানান, ২৫৬ কোটি টাকা ব্যয়ে চিতলমারী উপজেলার ৩টি নদীসহ ৫৫ টি খাল খননের কাজ চলছে। উপজেলা সদর বাজারের দুই পাশ দিয়ে বহমান মরা চিত্রা নদী ও হক ক্যানেলের খনন কাজ প্রায় শেষের দিকে। বাজারের সদর ইউনিয়ন ভূমি অফিসের পিছনে চিত্রা পাড়ে মাটির নিচে চাপা পড়েছে এলজিইডি নির্মিত প্রায় ২৭ লাখ টাকার একটি ঘাট। অনরুপ চিতলমারী মাছ বাজারের পিছনে খননাধীন হক ক্যানেলের পাড়ের ২৭ লাখ টাকার ঘাটটিও মাটির নিচে চাপা পড়েছে। তার উপর নির্মান করা হয়েছে কাঠের পোল। বর্তমানে উপজেলা সদর বাজারের এত বড় হাটে কোন পাবলিক ঘাট নেই। তাই বাজারে আসা হাজার হাজার মানুষের পণ্য উঠানামা ও বাজারে বসবাসকারী পরিবার গুলোর চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

সদর বাজারের ব্যবসায়ী শেখ নজরুল ইসলাম, প্রাণ কৃষ্ণ দত্ত ভগো, মো. নজরুল তালুকদার ও মো. জুয়েল শেখ বলেন, ‘নদী এবং খাল খননের জন্য দুই পাড়ের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। খাল খনন শেষে আবারও এগুলো দখল হয়ে যাবে। তাই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আমাদের দাবী দখলের আগেই যেন মানুষের জন্য একটি ঘাটের জায়গা নির্ধারণ করে ঘাট নির্মান করা হয়।’

সদর বাজার ব্যবসায়ী ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি মোঃ শহীদুল ইসলাম লিটন বলেন, ‘দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে বাজারে ব্যবহারের মত কোন ঘাট নেই। আমি বাজারবাসীর পক্ষ থেকে পুরানো ঘাট উদ্ধারসহ নতুন ঘাট নির্মানের দাবী করছি।’

উপজেলা প্রকৌশলী মো. সাদ্দাম হোসেন বলেন, ‘এ গুলো এডিপির কাজ। আমরা তদারকি করি। আমি এখানে নতুন। ঘাট গুলো কি অবস্থায় আছে, তা দেখে গুরুত্বের সাথে খোঁজ-খবর নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।’

চিতলমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাইয়েদা ফয়জুন্নেছা জানান, মাটির নিচে ঘাট গুলোর খোঁজ নেওয়া হবে। প্রয়োজনে আগামী অর্থ বছরে নতুন ঘাট নির্মানের জন্য অর্থ বরাদ্দের ব্যবস্থা করা হবে।

ষাট গম্বুজ বার্তা
ষাট গম্বুজ বার্তা