• বৃহস্পতিবার   ০৬ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ২১ ১৪২৯

  • || ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

ষাট গম্বুজ বার্তা

৩২ বাংলাদেশি জেলেকে হস্তান্তর করলো ভারতীয় কোস্টগার্ড

ষাট গম্বুজ টাইমস

প্রকাশিত: ২৪ আগস্ট ২০২২  

ঝড়ের কবলে পরে ইঞ্জিন বিকল হয়ে আটকা পড়া ও বঙ্গোপসাগরে ডুবে যাওয়া ফিশিং ট্রলারের বাংলাদেশের ৩২ জেলেদের ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করেছে ভারতীয় কোস্টগার্ড। তাদেরকে মঙ্গলবার (২৩ আগষ্ট) দুপুরে মোংলা কোস্ট গার্ডের হাতে হস্তান্তর করলে রাত সাড়ে ৯টায় কোস্ট গার্ড পশ্চিম জোনের (মোংলা সদর দপ্তর) মোংলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মধ্যস্থতায় পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

গত ১৮ ও ১৯ আগষ্ট বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ সৃষ্টি হলে বৈরী আবহাওয়ার মুখে পড়ে সাগরে ইলিশ ধরতে যাওয়া শতাধিক ফিশিং ট্রলারে থাকা জেলেরা। সাগরে নিম্নচাপ শুরু হওয়ায় ঝড়ের কবলে পড়ে ইঞ্জিন বিকল হয়ে ডুবে যাওয়া ১১ জেলেসহ ফিশিং ট্রলার এফবি আব্দুল্লাহ-১, এফবি মায়ের দোয়া ১৩ জন” ও “এফবি জান্নাতুল ফেরদৌস”-এর ১২ জনসহ মোট ৩৬ জন জেলে। তাদের ফিশিং ট্রলার ডুবে গেলে বয়া ও ভাসমান অন্যান্য জিনিসপত্র নিয়ে সাগরে ভাসতে থাকে। ভাসতে ভাসতে বাংলাদেশ সমুদ্রসীমা অতিক্রম করে ভারতীয় জলসীমায় চলে যায়। এসময় সমুদ্রে টহলরত অবস্থায় ভারতীয় কোস্ট গার্ড ২১ আগস্ট সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ৩৬ জেলে থেকে ২৭ জনকে সমুদ্রে ভাসমান অবস্থায় জীবিত উদ্ধার করে। নিখোজ রয়েছে ৯ জন। এছাড়া আরো ৫ জেলেকে উদ্ধার করলে তারা কেউ ফিশিং ট্রলারে সঠিক নাম পরিচয় জানাতে পারেনি।

উদ্ধারকৃত এ ৩২ জেলেদের ২৩ আগস্ট দুই দেশের কোস্ট গার্ডের সমঝোতার মাধ্যমে বাংলাদেশ-ভারত সমুদ্র নিয়ন্ত্রণ রেখায় বাংলাদেশ কোস্টগার্ড জাহাজ তাজউদ্দিন এর নিকট হস্তান্তর করে। পরে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড জাহাজ অপরাজেয় বাংলায় জেলেদের নিয়ে মঙ্গলবার (২৩ আগষ্ট) সন্ধ্যার পর কোস্ট গার্ড মোংলা সদর দপ্তরে নিয়ে পৌছায়।

উদ্ধার হওয়া এনায়েত চৌধুরী (২২) নামে পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানি উপাজেলার বাসিন্দা, ভোলা জেলার চরফ্যাশন উপজেলার মোঃ ইউসুফ (৩৮), বরগুনা জেলার পাথরঘাটা উপজেলার মোঃ ফয়সাল (২০) ও পটুয়াখালী জেলার মহিপুর উপজেলার মোঃ রাব্বি (২৫) বলেন, গত ১৫ আগষ্ট সমুদ্র মাছ আহরনের উদ্দেশ্য রওনা হন। এরপর ১৮ ও ১৯ আগষ্ট ঝড়ের কবলে পড়ে তাদের মাছ ধরার ট্রলার ইঞ্জিন বিকল হয়ে পানি ঢুকে পড়ে তিনটি ট্রলারই ডুবে যায়। এ অবস্থায় পরে তারা তাদের ড্রাম ধরে সাগরে তিনদিন ধরে ভাসতে থাকেন। এসময় তারা অভুক্ত অবস্থায় থেকে জীবনের আশা ছেড়ে দেন। তাদের মত বাকিদেরও একই অবস্থা তৈরি হয়েছে।

ঝড়ের কবলে পড়া তিনটি ট্রলারে ৩৬ জন জেলে ছিল। এরমধ্যে ভারতীয় কোস্ট গার্ড ২৭ জনকে জীবিত উদ্ধার করলেও বাকিরা এখনও নিখোঁজ রয়েছেন। হয়তোবা তারা বেঁচে নেই বলে জানায় উদ্ধার হওয়া এসব জেলেরা।

মোংলা কোস্টগার্ডের অপারেশন কর্মকর্তা লে. কমান্ডার এ এস এম লুৎফর রহমান বলেন, গত ১৮ ও ১৯ আগষ্ট সাগরে ঝড়ের কবলে পড়ে ফিশিং ট্রলার ডুবিতে জেলেরা ভাসতে ভাসতে ভারতের সমুদ্র সীমায় চলে যায়। সেখান থেকে ভারতীয় কোস্টগার্ড তাদের উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে আমাদের কাছে পৌছে দিয়েছে। ঝড়ের কবলে পরে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার হওয়া এসব জেলেদের বাড়ি পিরোজপুর, ভোলা, পটুয়াখালী ও বরগুনা জেলার বিভিন্ন উপজেলায়। তাদেরকে মঙ্গলবার (২৩ আগষ্ট) রাত সাড়ে ৯টায় মোংলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদারে উপস্থিতিতে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এসময় কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের উর্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ষাট গম্বুজ বার্তা
ষাট গম্বুজ বার্তা