• বৃহস্পতিবার   ০৬ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ২১ ১৪২৯

  • || ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

ষাট গম্বুজ বার্তা

সুন্দরবনে উদ্ধার হওয়া দুইমন হরিণের মাংস সকালে সাত কেজি

ষাট গম্বুজ টাইমস

প্রকাশিত: ২৫ আগস্ট ২০২২  

সুন্দরবন থেকে রাতে উদ্ধার করা হয়েছে দুইমন হরিণের মাংস। কিন্তু সকালে হয়ে গেলো মাত্র সাত কেজি। এমনকি অজ্ঞাত কারণে মাংস উদ্ধারের কোন ছবিও তুলে রাখতে পারেনি তারা। হরিণের মাংস উদ্ধার নিয়ে শরণখোলার বনরক্ষীদের এমন লুকোচুরিতে এলাবাসীর মধ্যে ব্যপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

এলাকাবাসী জানান, মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের আওতাধীন ভোলা টহল ফাঁড়ির রায়বাঘিনী খালে অভিযান চালায় বনরক্ষীরা। এ সময় একটি ডিঙ্গি নৌকায় রাখা বস্তা ভর্তি প্রায় দুইমন হরিণের মাংস ও এক বোতল রিপকড কিটনাশকসহ দুইমন চিংড়ি মাছ জব্দ করেন তারা। এ সময় দুই রাউন্ড ফাঁকা গুলিও ছোঁড়া হয়। তবে কোন শিকারিকে আটক করতে পারেনি বনরক্ষীরা। কিন্তু সকালে জব্দ তালিকায় মাত্র ৭কেজি হরিণের মাংস ও ২০ কেজি চিংড়ি মাছ দেখানো হয়।

অভিযানকালে বনরক্ষীদের সাথে থাকা কমিউনিটি প্রেট্রোলিং গ্রুপ (সিপিজি) এর কয়েকজন সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, হরিণ শিকারের গোপন সংবাদ পেয়ে তারা বনবিভাগের ভোলা টহলফাঁড়ির বনরক্ষীদের জানান। এরপর রাতে ওই টহলফাঁড়ির বনরক্ষীদের সাথে নিয়ে তারা অভিযানে যান। অভিযানকালে বনরক্ষীদের উপস্থিতি টেরপেয়ে শিকারিরা পালিয়ে যায়। এ সময় শিকারিদের ব্যবহৃত ডিঙ্গিনৌকা তল্লাশি করে প্রায় দুইমন হরিণের মাংস ও দুইমন বিষ দিয়ে ধরা চিংড়ি মাছসহ একবোতল রিপকড কিটনাশ উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার করা অধিকাংশ মাংস ও চিংড়ি ওই রাতেই ঘটনাস্থলের বনে মাটিচাপা দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া ৫-৭ কেজি মাংস ও ১৫-২০ কেজি চিংড়ি শরণখোলা ষ্টেশনে নিয়ে মাটিচাঁপা দেয় বনরক্ষীরা। তবে এসব বিষয়ে তাদের মুখ খুলতে নিষেধ করেছে বন কর্মকর্তারা।

শরণখোলা সুন্দরবন সুরক্ষা পরিষদের সভাপতি নজরুল ইসলাম আকন বলেন, বনরক্ষীদের হরিণের মাংস উদ্ধার নিয়ে লুকোচুরি কর্মক্ষেত্রে অসচ্ছতার সামিল। বনবিভাগের এসব বিষয়ে আরো সচ্ছোতার সাথে দায়িত্ব পালনের দাবী জানান তিনি।

এব্যপারে শরণখোলা ষ্টেশন কর্মকর্তা মোঃ আসাদুজ্জামান আসাদ দুইমন হরিণের মাংস উদ্ধারের বিষয় অস্বীকার করে বলেন, রাতে ৫ থেকে ৭ কেজি হরিণের মাংস ও ২০ কেজি চিংড়ি মাছসহ একটি ডিঙ্গি নৌকা জব্দ করে মামলা দেয়া হয়েছে। বিগত সময় হরিণের মাংস উদ্ধারের ছবি তোলা হলেও এ ঘটনার কোন ছবিও তুলতে পারেনি বলে তিনি জানান। 
শরণখোলা রেঞ্জ কর্মকর্তা (এসিএফ) মোঃ শহিদুল ইসলাম বলেন, কে কি বললো সেটা বিষয় নয় বন বিভাগ যেটি বলবে সেটি হচ্ছে রেকড। উদ্ধার করা সাত কেজি হরিণের মাংস ও ২০ কেজি চিংড়ি রেঞ্জ অফিস সংলগ্ন বনে কেরোসিন দিয়ে মাটিচাঁপা দেয়া হয়েছে।

ষাট গম্বুজ বার্তা
ষাট গম্বুজ বার্তা