• শুক্রবার   ১২ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৮ ১৪২৯

  • || ১৫ মুহররম ১৪৪৪

ষাট গম্বুজ বার্তা

সাগরে আটক ১৩৫ ভারতীয় জেলেকে মোংলা থানায় হস্তান্তর

ষাট গম্বুজ টাইমস

প্রকাশিত: ২৯ জুন ২০২২  

বাংলাদেশের পানিসীমায় অবৈধ অনুপ্রবেশ করে মাছ ধরার সময় নৌ বাহিনীর হাতে আটক হওয়ায় ১৩৫ ভারতীয় জেলেকে বাগেরহাটের মোংলা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। দুই দফায় তাদের হস্তান্তর করা হয়। প্রথম দফায় মঙ্গলবার রাতে ৪ টি ফিশিং বোটসহ হস্তান্তর করা ৬৮ জনকে আজ বুধবার মামলা দায়ের পূর্বক আদালতে পাঠানো হয়। বাগেরহাট জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তোলা হলে বিচারক খোকন হোসেন তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। অন্যদিকে আজ বুধবার বিকালে আরও ৪ টি ফিশিং বোট সহ হস্তান্তর করা বাকী ৬৭ জনকে।  বৃহস্পতিবার সকালে তাদের আদালতে পাঠানো হবে। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন মোংলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম। তিনি আরও জানান, ভারতীয় জেলেদের বঙ্গোপসাগর থেকে বিএনএস মোংলা নৌঘাঁটিতে নিয়ে আসা হয়। এরপর দুই দফায় পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। আটকের ঘটনায় সমুদ্রসীমা লঙ্ঘন আইনে পৃথক দুটি মামলা হয়েছে। প্রথম চারটি ফিশিং ট্রলার থেকে উদ্ধারকৃত বিভিন্ন ধরণের প্রায় ১০ মন সামুদ্রিক মাছ আজ বুধবার প্রকাশ্য নিলামের মাধ্যমে ৫ লাখ ৮ হাজার টাকায় বিক্রি করা হয়েছে। এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার উপস্থিত ছিলেন। পরের চারটি ফিশিং ট্রলারের মাছও প্রকাশ্যে নিলামে বিক্রি করা হবে। বিক্রির সমুদয় অর্থ সরকারি কোষাগারে জমা দেয়া হবে।

 
এর আগে সোমবার (২৭ জুন) রাত ১০টার দিকে গভীর সমুদ্রে টহলরত নৌবাহিনীর সদস্যরা তাদের গ্রেপ্তার করেন। নৌসদস্যরা তাদের টহলজাহাজ বিএনএস আলী হায়দার ও বিএনএস প্রত্যয় নিয়ে বঙ্গোপসাগরে বাংলাদেশের জলসীমা সোয়াচ অব নো গ্রাউন্ড এলাকা টহলের সময় সেখান থেকে ৮টি মাছ ধরার ট্রলারসহ ওই ১৩৫ আটক করে।
আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ‘সামুদ্রিক মাছের প্রজনন মৌসুম বিবেচনায় সরকার ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত ৬৫ দিন সাগরে মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা জারি করে। নিষেধাজ্ঞা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে নৌবাহিনীর জাহাজ ও মেরিটাইম পেট্রোল এয়ার ক্রাফট (এমপিএ) নিয়মিত টহল দিচ্ছে। এর মধ্যে সোমবার রাতে পটুয়াখালী জেলার কুয়াকাটা সংলগ্ন রাবনাবাদ চ্যানেলের অদূরে পায়রা ফেয়ারওয়ে বয়া এলাকায় বিদেশি ফিশিং ট্রলারের অবস্থান শনাক্ত করে। পরবর্তীতে গভীর সমুদ্রে টহলরত নৌবাহিনীর জাহাজ বাংলাদেশ-ভারত আন্তর্জাতিক জলসীমা থেকে ৩৬-৬০ নটিক্যাল মাইল (৬৭-১১১ কিলোমিটার) অভ্যন্তরে আটটি ভারতীয় ফিশিং ট্রলারসহ ১৩৫ ভারতীয় জেলে ও ক্রু আটক করে। তাদের মোংলা থানায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য হস্তান্তর করা হবে।’
 

ষাট গম্বুজ বার্তা
ষাট গম্বুজ বার্তা