• বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০২৪ ||

  • বৈশাখ ৫ ১৪৩১

  • || ০৮ শাওয়াল ১৪৪৫

ষাট গম্বুজ বার্তা

৩২ প্রকল্প উঠছে একনেকে

ষাট গম্বুজ টাইমস

প্রকাশিত: ২৮ আগস্ট ২০২৩  

চলতি বছরের ডিসেম্বর অথবা আগামী বছরের জানুয়ারি মাসে হতে পারে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। নির্বাচনের সময় ঘনিয়ে আসার সঙ্গে বাড়ছে উন্নয়ন প্রকল্প অনুমোদনের সংখ্যা। ২৯ আগস্ট অনুষ্ঠেয় জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে অনুমোদনের জন্য উঠতে যাচ্ছে ৩২টি প্রকল্প। এটি চলতি অর্থবছরে এ পর্যন্ত সর্বোচ্চ সংখ্যা।

এগুলোর মধ্যে একনেকে অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হচ্ছে ২০টি প্রকল্প। ব্যয় বৃদ্ধি ছাড়া শুধু মেয়াদ বাড়ানোর জন্য উপস্থাপন করা হবে পাঁচটি এবং আগেই পরিকল্পনামন্ত্রী অনুমোদন দিয়েছেন এমন সাতটি প্রকল্প (৫০ কোটি টাকার নিচে ব্যয়) অবগতির জন্য তোলা হবে। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সূত্রে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

সূত্র জানায়, ২৯ আগস্ট হবে চলতি অর্থবছরের দ্বিতীয় একনেক বৈঠক।

এতে সভাপতিত্ব করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত কয়েকটি একনেক পর্যালোচনা করে দেখা যায়, প্রকল্প অনুমোদনের সংখ্যা বাড়ছে। ১৮ জুলাই অনুষ্ঠিত একনেক বৈঠকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে ১৫টি প্রকল্প। এগুলো বাস্তবায়নে ব্যয় ধরা হয় ১৮ হাজার ১০ কোটি টাকা।

এ ছাড়া ২০ জুন অনুমোদন দেওয়া হয় ১৬টি প্রকল্প। এগুলোর ব্যয় ধরা হয়েছিল ২৪ হাজার ৩৬২ কোটি ১৪ লাখ টাকা। এর আগে ৬ জুন একনেক বৈঠকে অনুমোদন দেওয়া হয় ১৮টি উন্নয়ন প্রকল্প। এগুলো বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১১ হাজার ৩৮৭ কোটি ৯১ লাখ টাকা। ১১ এপ্রিল অনুমোদন দেওয়া হয় ১১টি উন্নয়ন প্রকল্প।

এগুলো বাস্তবায়নে ব্যয় ধরা হয়েছে ১৩ হাজার ৬৫৫ কোটি ৯৮ লাখ টাকা। ৪ এপ্রিল অনুমোদন দেওয়া হয় ১১টি প্রকল্প—এগুলোর ব্যয় ধরা হয়েছিল চার হাজার ২৫২ কোটি ৬৬ লাখ টাকা।

২৯ আগস্ট একনেকে উঠতে যাওয়া প্রকল্পগুলোর মধ্যে রয়েছে স্মল হোল্ডার অ্যাগ্রিকালচার কম্পিটিটিভনেস প্রজেক্ট (এসএসিপি)। এ ছাড়া গোপালগঞ্জ জেলার গুরুত্বপূর্ণ পল্লী অবকাঠামো উন্নয়ন (দ্বিতীয় পর্যায়)। ক্লাইমেট অ্যান্ড ডিজাস্টার রেজিলিয়েন্স স্মল স্কেল ওয়াটার রিসোর্সেস ম্যানেজমেন্ট প্রজেক্ট। মেঘনা নদীর ভাঙন থেকে নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার নলের চরে নির্মিত অবকাঠামো রক্ষার্থে প্রতিরক্ষামূলক কাজ। ঢাকার কেরানীগঞ্জে শুভাঢ্যা খাল পুনঃখনন এবং খালের উভয় পারের উন্নয়ন ও সুরক্ষা (প্রথম পর্যায়)। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলায় মহানন্দা নদী ড্রেজিং ও রাবার ড্যাম নির্মাণ। বাগেরহাট কালেক্টরেটের নতুন ভবন নির্মাণ। হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী শিশু পার্ক আধুনিকীকরণ। পূর্বাচল ৩০০ ফুট সড়ক থেকে মাদানী এভিনিউ পর্যন্ত সংযোগকারী দুটি সড়ক উন্নয়ন। সিলেট সড়ক বিভাগাধীন সিলেট (তেলিখাল)-সুলতানপুর-বালাগঞ্জ সড়কে বড় ভাঙা সেতু নির্মাণ। মুন্সীগঞ্জ সড়ক বিভাগের আওতায় রামেরকান্দা-লাকির চর সংযোগ সড়ক উন্নয়ন প্রকল্প।

আরো আছে এস্টাবলিস্টমেন্ট অব ৫০০ বেডেড হসপিটাল অ্যান্ড এন্সিলারি ভবন ইন যশোর, কক্সবাজার; পাবনা আব্দুল মালেক উকিল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ডায়াগনস্টিক ইমেজিং ব্যবস্থার আধুনিকীকরণ। শিশু ও মাতৃস্বাস্থ্য এবং স্বাস্থ্যব্যবস্থার উন্নয়ন (কম্পোনেন্ট-২) : দেশের আটটি বিভাগীয় শহরের মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ডায়াগনস্টিক ইমেজিং ব্যবস্থার আধুনিকীকরণ। খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অবকাঠামো ও একাডেমিক কার্যক্রম সম্প্রসারণ এবং লিভিং নো অব বিহাইন্ড : ইমপ্রুভিং স্কিল অ্যান্ড ইকোনমিক অপরচ্যুনিটিস ফর দ্য উইমেন অ্যান্ড ইয়ুথ ইন কক্সবাজার প্রজেক্ট।

গত কয়েকটি একনেক বৈঠক পর্যালোচনা করে দেখা যায়, প্রকল্প অনুমোদনের সংখ্যা বাড়ছে। ১৮ জুলাই অনুষ্ঠিত একনেক বৈঠকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে ১৫টি প্রকল্প। এগুলো বাস্তবায়নে ব্যয় ধরা হয় ১৮ হাজার ১০ কোটি টাকা। এ ছাড়া ২০ জুন অনুমোদন দেওয়া হয় ১৬টি প্রকল্প। এগুলোর ব্যয় ধরা হয়েছিল ২৪ হাজার ৩৬২ কোটি ১৪ লাখ টাকা। এর আগে ৬ জুন একনেক বৈঠকে অনুমোদন দেওয়া হয় ১৮টি উন্নয়ন প্রকল্প। এগুলো বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১১ হাজার ৩৮৭ কোটি ৯১ লাখ টাকা। ১১ এপ্রিল অনুমোদন দেওয়া হয় ১১টি উন্নয়ন প্রকল্প—এগুলো বাস্তবায়নে ব্যয় ধরা হয়েছে ১৩ হাজার ৬৫৫ কোটি ৯৮ লাখ টাকা। ৪ এপ্রিল অনুমোদন দেওয়া হয় ১১টি প্রকল্প—এগুলোর ব্যয় ধরা হয়েছিল চার হাজার ২৫২ কোটি ৬৬ লাখ টাকা।

বিশ্বব্যাংকের সাবেক মুখ্য অর্থনীতিবিদ জাহিদ হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘হুট করেই এতগুলো প্রকল্প কেন একনেকে অনুমোদনের জন্য তোলা হবে, তা নিয়ে একটা প্রশ্ন তোলা যেতে পারে—এগুলো নির্বাচনী প্রকল্প কি না। আবার সামনে নির্বাচন, সুতরাং সে নিয়ে এই প্রশ্ন তোলা যেতে পারে যে এগুলো নির্বাচনী প্রকল্প কি না।’

ষাট গম্বুজ বার্তা
ষাট গম্বুজ বার্তা